শুক্রবার   ০১ জুলাই ২০২২   আষাঢ় ১৭ ১৪২৯   ০২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩

প্রবাস খবর
সর্বশেষ:
আপনি কি আপনার প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা সম্পর্কে লিখতে চান? লেখা [email protected] এ পাঠাতে পারেন।
৪৭

২৮ জুলাই নিউইয়র্ক বাংলা বইমেলার ৩১তম আসর

প্রকাশিত: ১২ জুন ২০২২  

আগামী ২৮ জুলাই থেকে চার দিনব্যাপী ‘বই হোক বিশ্ব বাঙালির মিলন সেতু’ -- এ স্লোগান নিয়ে নিউইয়র্ক বাংলা বইমেলার ৩১তম আসর বসছে জ্যামাইকা পারফরমিং আর্ট সেন্টারে। এ উপলক্ষ্যে বৃহস্পতিবার (০৯ জুন) সন্ধ্যায় ঢাকায় বাংলা একাডেমির শহীদ মুনীর চৌধুরী সভাকক্ষে লেখক-প্রকাশক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।
বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক কবি মুহম্মদ নূরুল হুদার সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন ঢাকা সফররত ৩১তম নিউইয়র্ক বাংলা বইমেলার আহ্বায়ক গোলাম ফারুক ভূঁইয়া।
এদিকে সভাপতির বক্তব্যে বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা বলেন, একুশের গ্রন্থমেলা শুরু হয়েছে মুক্তধারার চিত্তরঞ্জন সাহার হাত ধরে। আজ থেকে ৩০ বছর আগে বিশ্বজিত সাহার হাত ধরে বহির্বিশ্বে বাংলা বইমেলার শুরু হয়। ১৯৯২ সালের আগে বাংলাদেশ ও পশ্চিমবঙ্গের বাইরে কোথাও বাংলা বইমেলা হয়েছে বলে আমাদের জানা নেই। কবি নূরুল হুদা বলেন, আজ সারা পৃথিবীতে বাঙালি সাহিত্য-সংস্কৃতির যে প্রচলন শুরু হয়েছে তা ধারণ করতে হবে, যার প্রচলিত মাধ্যম হলো বই। আর বই যে শুধু হরফের অক্ষরে হতে হবে তা নয়, বই মানুষের মনেও লেখা হতে পারে।
তিনি আরও বলেন, নানা প্রতিকূলতার মাঝেও অদম্য উদ্যোগে কাজ করে চলেছেন নিউইয়র্কের মুক্তধারার বিশ্বজিত সাহা। তিনি আরও বলেন, বিশ্বজুড়ে বাংলা ভাষার এ মহাযজ্ঞে সবাই যদি সহযোগিতার হাত বাড়াই তাহলে এ উদ্যোগের সফলতা আসবে।
গোলাম ফারুক ভূঁইয়া বলেন, আমরা গত ৩০ বছর ধরে আমেরিকার নিউইয়র্ক শহরে বাংলা ভাষার একটি বইমেলা করে চলেছি। গত দুবছর কোভিড-১৯-এ সারা পৃথিবী ক্ষতবিক্ষত। কিন্তু আমরা ২০২০-তে ভার্চুয়াল প্রথম বাংলা বইমেলা করে সারা পৃথিবীর বাংলা ভাষার লেখক পাঠকদের একই সূত্রে যুক্ত করার চেষ্টা করেছি। গতবছর নিউইয়র্কে স্বল্প পরিসরে বইমেলার আয়োজন করে ব্যাপক সাড়া পেয়েছি। এবার ৩১তম বাংলা বইমেলায় বাংলাদেশের অধিক সংখ্যক লেখক ও প্রকাশক যাতে যোগ দিতে পারেন তার জন্য আমরা কাজ করছি।
মতবিনিময় অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন কবি ইউসুফ রেজা। মুক্তধারা ফাউন্ডেশনের আয়োজনে এ বছর ২৮ জুলাই থেকে ৩১ জুলাই পর্যন্ত চার দিনব্যাপী বইমেলা অনুষ্ঠিত হবে জ্যামাইকা পারফরমিং আর্টস সেন্টারে। (ঠিকানা: ১৫৩-১০ জ্যামাইকা এভিনিউ, নিউইয়র্ক-১১৪৩৫)
মতবিনিময় সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট নাট্যজন রামেন্দু মজুমদার, লেখক আনোয়ারা সৈয়দ হক, বাংলাদেশ রাইটার্স ক্লাবের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শেখ রবিউল হক, বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতির সাবেক সভাপতি আকাশ প্রকাশনীর আলমগীর শিকদার লোটন, লেখক ও সংগঠক আবু সাইদ শাহীন, ছোট কাগজ লোক সম্পাদক অনিকেত শামীম, সময় প্রকাশনীর স্বত্বাধিকারী ফরিদ আহমেদ, অনন্যার মনিরুল হক, বাতি ঘরের জাফর আহমেদ রাশেদ, অঙ্কুর প্রকাশনীর মেসবাহউদ্দীন আহমেদ, শ্রাবণ প্রকাশনীর রবীন আহসান, বই ঘরের মাধবচন্দ্র দাস, কাকলী প্রকাশনীর এ কে নাসির আহমেদ সেলিম, ধ্রুবপদ পাবলিশিং-এর আবুল বাসার ফিরোজ, ওয়ার্কার্স পার্টির প্রকাশনা বিভাগের মাহমুদুল হাসান মানিক ও মুক্তধারা ফাউন্ডেশনের সাধারণ সম্পাদক বিশ্বজিত সাহা প্রমুখ।
সভায় আরও উপস্থিত ছিলেন বাংলা একাডেমির পরিচালক মো. মোবারক হোসেন, ডা. মোহাম্মদ হাসান কবীর, সমীর কুমার সরকার, নুরুন্নাহার খানম, মো. আফজাল হোসেন, জিএম মিজানুর রহমান, ড. মোহাম্মদ হারুন রশিদ, ড. সাইমন জাকারিয়া, বাচিক শিল্পী নিপু শাহাদাত, লেখক ফারহান ইশরাক, মোজাফফর আহমেদ, বাবুল বিশ্বাস, লেখক স্বকৃত নোমান, ইফাত রুপা জামান, প্রবাসী কবি আবু সাইদ শাহীন, অ্যাক্টিভিস্ট আনিসুল কবির জাসির, কবি সোহাগ সিদ্দিকীসহ অনেকে।
উপস্থিত সবাই নিউইয়র্ক বাংলা বইমেলার ৩১তম আসরের সাফল্য কামনা করেন।

প্রবাসখবর.কম/বি

প্রবাস খবর
এই বিভাগের আরো খবর