বৃহস্পতিবার   ২৬ নভেম্বর ২০২০   অগ্রাহায়ণ ১২ ১৪২৭   ১০ রবিউস সানি ১৪৪২

প্রবাস খবর
সর্বশেষ:
আপনি কি আপনার প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা সম্পর্কে লিখতে চান? লেখা [email protected] এ পাঠাতে পারেন।
৮৪

সৌদি আরবে ৮ শর্তে কফিলের অনুমতি ছাড়াই চাকরি পরিবর্তন করা যাবে

প্রকাশিত: ২০ নভেম্বর ২০২০  

দেশটির মানবসম্পদ এবং সামাজিক উন্নয়ন মন্ত্রণালয় বলছে এর জন্য ৮টি শর্ত মানতে হবে।

দেশটির মানবসম্পদ এবং সামাজিক উন্নয়ন মন্ত্রণালয় বলছে এর জন্য ৮টি শর্ত মানতে হবে।

সৌদি আরবে প্রবাসী কর্মীরা তাদের নিয়োগকর্তার (কফিল) অনুমতি ছাড়াই চাকরি পরিবর্তন করতে পারবেন। দেশটির মানবসম্পদ এবং সামাজিক উন্নয়ন মন্ত্রণালয় বলছে এর জন্য ৮টি শর্ত মানতে হবে। চলতি নভেম্বর মাসে দেশটির শ্রম আইন সংশোধন করেছে। সংশোধনে কাফালাভিত্তিক বাধ্যতামূলক নিয়োগ চুক্তি শিথিলের কথা জানানো হয়েছে।

নিয়োগ কর্তার অনুমতি ছাড়া যেসব শর্তের আওতায় প্রবাসী কর্মীরা এসব সুবিধা নিতে পারবেন সেগুলো হলো- 

  • সৌদি আরবে যাওয়ার তিন মাস পরও নিয়োগদাতা ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান কাজের চুক্তিপত্র দিতে ব্যর্থ হলে।
  • টানা তিন মাস কোনো কর্মীকে চুক্তিপত্রে উল্লেখিত বেতন-ভাতা প্রদান না করা হলে।
  • নিয়োগদাতা অবৈধ মানব পাচারে জড়িত, কর্মীর কাছে এমন সাক্ষ্য-প্রমাণ থাকে।
  • ইকামা বা কর্ম-ভিসার আওতায় সৌদিতে অবস্থানের সময় পেরিয়ে গেলে মালিকের অনুমতি ছাড়াই সৌদি আরব ত্যাগ করতে পারবেন কর্মীরা।
  • ভ্রমণ, কারাবাস, মৃত্যু বা অন্য কোনো কারণে যদি নিয়োগদাতা অনুপস্থিত থাকেন।
  • মালিকের অসাধুতা অবলম্বনের অভিযোগ যদি প্রবাসী কর্মী করেন এবং তিনি যদি সেই অন্যায়ে জড়িত না হন, সে ক্ষেত্রেও তাঁর নিরাপত্তা বিবেচনায় কর্মস্থল বদলের সুযোগ থাকবে।
  • শ্রমপরিবেশ নিয়ে মালিকের সঙ্গে বিরোধ দেখা দিলে এবং অনুরোধ সত্ত্বেও নিয়োগদাতার প্রতিনিধি সেই বিরোধ অবসানের শুনানি গ্রহণ করতে পরপর দুইবার ব্যর্থ হলে বা শান্তিপূর্ণ সমাধান না করতে পারলে।
  • বর্তমান নিয়োগদাতা যদি কোনো শ্রমিককে ছাঁটাই করার ইচ্ছা প্রকাশ করে, সে ক্ষেত্রেও চাকরি বদলানো যাবে।

এছাড়া বিদেশি কর্মী নিয়োগকারীরাও সংশোধনীর আওতায় পড়বেন। এক্ষেত্রে তাদের যে চারটি মূল শর্তপূরণ করতে হবে সেগুলো হলো- 

  •  নিয়োগকর্তার প্রতিষ্ঠানটি নিয়ম ও শর্ত মোতাবেক ভিসাপ্রাপ্ত হওয়ার যোগ্য হলে।
  • নিয়মিত কর্ম-পরিবেশ মূল্যায়নে নিজস্ব উদ্যোগও রাখতে হবে।
  • প্রতিষ্ঠানটি বেতন-ভাতা সুরক্ষা কর্মসূচির সঙ্গে সহাবস্থানে থাকলে।
  • শ্রমিকদের চুক্তির দলিল আইনি প্রক্রিয়ায় সংগ্রহ করে তা ডিজিটাল মাধ্যমে নিবন্ধন।

প্রবাসখবর.কম/এস 

প্রবাস খবর
এই বিভাগের আরো খবর