শুক্রবার   ০১ জুলাই ২০২২   আষাঢ় ১৭ ১৪২৯   ০২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩

প্রবাস খবর
সর্বশেষ:
আপনি কি আপনার প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা সম্পর্কে লিখতে চান? লেখা [email protected] এ পাঠাতে পারেন।
৫৫

ফ্রান্সের প্যারিসে প্রবাসী বাংলাদেশি হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভ

প্রকাশিত: ৬ জুন ২০২২  

গতকাল রোববার (৫ জুন) দুপুর থেকেই ফ্রান্সের প্যারিসে প্রবাসী বাংলাদেশি সোহেল রানা হত্যার প্রতিবাদে এক কাতারে দাঁড়িয়েছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা। প্রতিবাদ মিছিলে অংশ নেন কয়েক হাজার মানুষ। দ্রুত সোহেল রানা হত্যায় জড়িতদের গ্রেফতার ও চুরি ছিনতাই বন্ধে প্রশাসনের কাছে কার্যকর পদক্ষেপ নেয়ার দাবি জানান তারা।
সোহেল রানা যেখানে হামলার শিকার হন সেই প্লাস দ্য বাস্তিল- এ অংশ নেন বহু প্রবাসী বাংলাদেশি। প্যারিসে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশিদের উদ্যোগে হওয়া কোনো ঘটনায় এটাই সবচেয়ে বড় মিছিল। এ সময় বিভিন্ন দেশের অভিবাসীসহ নানা শ্রেণি-পেশার মানুষ স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে হত্যার প্রতিবাদে সামিল হন। 
জানা যায়, রাজধানী প্যারিসের প্লাস দুলা বাস্তিল থেকে প্রতিবাদ মিছিল শুরু হয়। শেষ হয় রিপাবলিক চত্বরে গিয়ে।  এ সময় ‘সোহেল হত্যার বিচার চাই’ স্লোগান তোলেন প্রবাসীরা। সমাবেশ থেকে দ্রুত সোহেল রানা হত্যায় জড়িতদের আইনের আওতায় আনা ও হামলা বন্ধে প্রশাসনকে সুনির্দিষ্ট ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানানো হয়।
আন্দোলনে অংশ নেওয়া বাংলাদেশি হাফিজুর রহমান বলেন, এ প্রতিবাদে আরও অনেকের মতোই আমিও নিজ দায়িত্বে এসেছি। কয়েকদিন ধরেই আসছি। কারণ আমরা যদি আজ প্রতিবাদ না করি তাহলে এমন ঘটনা কাল আমার বেলায়ও ঘটতে পারে। আগামীতে যেন কোনো বাংলাদেশির ওপর হামলার ঘটনা না ঘটে সেটা নিশ্চিত করতে হবে। সোহেলের হত্যাকারীদের অবিলম্বে গ্রেফতার করতে হবে।
প্রবাসী রাব্বানী খান জানান, নিহত সোহেল রানা হত্যার বিচার চাই। ইদানীং প্রবাসী বাংলাদেশিরা বিভিন্নভাবে আক্রমণের শিকার হচ্ছে। এ দেশের সরকারের কাছে এখন একটায় দাবি, সোহেল রানা হত্যার বিচার চাই এবং তার পরিবারকে যেন বৈধতা দেওয়া হয়।
এ ঘটনায় রেস্টুরেন্টের মালিক বাদী হয়ে মামলা করেছেন। প্যারিসে বাংলাদেশ দূতাবাসের দ্বিতীয় সেক্রেটারি মো. ওয়ালিদ বিন কাশেম বলেন, সোহেল রানার হত্যাকারীদের অবিলম্বে গ্রেফতার ও শাস্তির জন্য বাংলাদেশ দূতাবাস গুরুত্ব সহকারে কাজ করছে।
উল্লেখ্য, সপ্তাহ দুয়েক আগে (২১ মে) রাজধানী প্যারিসে ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে নিহত হন বাংলাদেশি যুবক সোহেল রানা। তার বাড়ি মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখানে। ছুরিকাঘাতে আহত হয়ে চারদিন চিকিৎসাধীন থাকার পর ২৫ মে ভোরে মারা যান তিনি।
ঘটনার দিন ভোরে সোহেল রানা যখন তার কর্মস্থল থেকে বাসায় ফিরছিলেন, তখন ছিনতাইকারীদের কবলে পড়েন। এ সময় ছিনতাইকারীরা তাকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়।
ওই দিনের ঘটনার বর্ণনা দিয়ে নিহতের এক স্বজন জানান, সকালে সোহেল রানা মেট্রোতে করে বাসায় ফিরছিলেন। এ সময় কিছু দুর্বৃত্ত তার পথ আটকায়। এরপর তাকে মেট্রো থেকে বের করে মারধর শুরু করে। এরই এক পর্যায়ে তাকে ছুরি দিয়ে আঘাত করে। এতে তার মাথা ব্যাপকভাবে আঘাতপ্রাপ্ত হয় এবং তিনি অজ্ঞান হয়ে পড়েন।
ওই স্বজন আরও জানান, এ অবস্থায় তাকে রাস্তায় ফেলে চলে যায় দুর্বৃত্তরা। এক পথচারী তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়। কয়েকদিনের চিকিৎসার পরও তার জ্ঞান ফেরেনি। অবশেষে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন সোহেল। 

প্রবাসখবর.কম/বি
 

প্রবাস খবর
এই বিভাগের আরো খবর