বুধবার   ১৯ জানুয়ারি ২০২২   মাঘ ৬ ১৪২৮   ১৫ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

প্রবাস খবর
সর্বশেষ:
আপনি কি আপনার প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা সম্পর্কে লিখতে চান? লেখা [email protected] এ পাঠাতে পারেন।
৬৫

কুমিল্লায় নির্বাচনী খরচ না দেওয়ায় বিবস্ত্র করে প্রবাসীকে মারধর

প্রকাশিত: ৯ জানুয়ারি ২০২২  

কুমিল্লার আদর্শ সদর উপজেলার আমড়াতলী ইউপির ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য সিরাজুল ও তার সহযোগীরা নির্বাচনী খরচ না দেওয়ায় এক প্রবাসীকে দোকানের সঙ্গে বেঁধে মারধরের পর সাদা স্ট্যাম্পে সই নেয় বলে জানা গেছে। গত ৭ জানুয়ারি দুপুরে ৪নং আমড়াতলী ইউপির তেলকুপি বাজার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
এদিকে ওই প্রবাসীকে মারধরের আগে ফোন করে গালাগাল ও হুমকির একটি অডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে, যা রীতিমতো তীব্র সমালোচনার জন্ম দিয়েছে। স্থানীয়রা বলছে, একজন ইউপির সদস্যর এমন কাণ্ড কোনোমতেই কাম্য নয়। এর সঠিক বিচার হওয়া উচিত।
অন্যদিকে এ বিষয়ে মালদ্বীপ প্রবাসী রাসেল ও তার পরিবার জানায়, নির্বাচনের আগে সিরাজুল মেম্বার নির্বাচনী খরচের জন্য ১ লাখ টাকা চায়। এত টাকা দিতে পারবে না জানিয়ে অপারগতা প্রকাশ করলে ক্ষিপ্ত হয়ে বিভিন্ন ধরনের হুমকি-ধমকি দিতে থাকে সিরাজুল। এরপর থেকেই বিভিন্নভাবে তার সন্ত্রাসী লোকজন দিয়ে প্রবাসীকে মারার চেষ্টা করতে থাকে।
পরবর্তীতে গত ৬ জানুয়ারি নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ায় প্রবাসীর ওপর চড়াও হয় ইউপি সদস্যর ভাগনে কালা মিয়ার লোকজন। ওইদিন রাতে স্থানীয় বাজারে গেলে রাসেলের সঙ্গে ঝগড়ার চেষ্টা চালায় কালা মিয়া। কিন্তু কথা না বাড়িয়ে প্রবাসী সেখান থেকে সরে যান। পরে কালা মিয়াকে মারধর করা হয়েছে অভিযোগ এনে প্রবাসীকে ফোন করে গালাগাল ও এলাকা ছাড়া হুমকি দেন ইউপি সদস্য এবং পরদিন তাকে বাজারে দেখা করতে বলেন তিনি।
গত ৭ জানুয়ারি রাসেল পার্শ্ববর্তী বুড়িচং উপজেলার ফকির বাজারে চা খেতে যান। সেখান থেকে সিরাজুলের ভাগনেসহ কয়েকজন অস্ত্র ঠেকিয়ে তাকে জোর করে তুলে নিয়ে তেলকুপি বাজারে একটি ওষুধের দোকানে বেঁধে রাখেন। সেখানে ইউপি সদস্যসহ তার সহযোগীরা প্রবাসীকে বিবস্ত্র করে বেধড়ক লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে জখম করে। পরে ১ টাকা মূল্যের তিনটি সাদা স্ট্যাম্পে সই নিয়ে আরেক দফায় পেটানো হয় তাকে। পরবর্তীতে স্থানীয়দের সহায়তায় রক্ষা পায় রাসেল।
পরে আবারও রাসেলের স্কুলপড়ুয়া ভাতিজা সায়মনকে (১৬) বাজারে পেয়ে তাকেও মারধর করে সিরাজুল মেম্বারের ছেলে ও ভাগনেরা। মারধরে আহত সায়মন বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছে বলে জানায় সায়মনের মা।
এ ঘটনায় কোতোয়ালি মডেল থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন ভুক্তভোগী প্রবাসী রাসেল। প্রতিপক্ষ বিষয়টি জানতে পেরে অভিযোগ প্রত্যাহার করে না নিলে প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দেয়। এতে আতঙ্কিত প্রবাসী ও তার পরিবার নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন বলে জানান। ঘটনার পর থেকে সন্ত্রাসীদের ভয়ে নিজের বাড়িতেও যেতে পারছেন না বলেও অভিযোগ রাসেলের।
এদিকে অভিযোগ অস্বীকার করে ৯নং ওয়ার্ডের নবনির্বাচিত ইউপি সদস্য সিরাজুল জানান, তেলকুপি বাজারে রাসেল শামীর নামে একজনের দোকানে কিছুদিন আগে হামলা করেছে। গতকালও বাজারের লোকজনকে মারধর করেছে। যাদের মারধর করেছে, তারা তাকে ধরে এনেছে আমার দোকানে। পরে সামাজিকভাবে বসে তার কাছ থেকে স্ট্যাম্পে স্বাক্ষর রাখা হয়েছে। আমি কোন চাঁদা চাইনি তার কাছে।
এ বিষয়ে কোতোয়ালি মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) কমল জানান, একটি অভিযোগ পেয়েছি। এ বিষয়ে তদন্তের জন্য ছত্রখিল ফাঁড়ির এসআই সাখাওয়াতকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তদন্ত করে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

প্রবাসখবর.কম/বি

 

প্রবাস খবর
এই বিভাগের আরো খবর