সোমবার   ২৬ জুলাই ২০২১   শ্রাবণ ১১ ১৪২৮   ১৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪২

প্রবাস খবর
সর্বশেষ:
আপনি কি আপনার প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা সম্পর্কে লিখতে চান? লেখা [email protected] এ পাঠাতে পারেন।
২২

কাবুলে শক্তিশালী বোমা বিস্ফোরণে অন্তত চারজন নিহত

প্রকাশিত: ১৪ জুলাই ২০২১  

গতকাল মঙ্গলবার স্থানীয় সময় বিকেলে আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুলে শক্তিশালী বোমা বিস্ফোরণে অন্তত চারজন নিহত হয়েছেন। এ ছাড়া আহত হয়েছেন আরও অন্তত ১১ জন। শহরের জাদায়ি মাইওয়ান্দ এলাকায় ওই বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। বিস্ফোরণের পরপরই আশাপাশে হতাহতদের মাটিতে পড়ে থাকতে দেখা যায়। এ সময় আতঙ্কে দিগ্বিদিক ছোটাছুটি শুরু করেন সাধারণ মানুষ। পরে, পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে হতাহতের উদ্ধার করে নিয়ে যায় হাসপাতালে। এ ঘটনায় আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। হামলার দায় এখন পর্যন্ত কেউ স্বীকার না করলেও তালেবানের দিকেই সন্দেহের তীর পুলিশের।
এদিকে, তালেবানের হাতে আটক নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের উদ্ধারে কান্দাহারে সরকারি বাহিনীর অভিযানে ব্যাপক সংঘর্ষের খবর পাওয়া গেছে। আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের পর দেশটিতে তালেবান মোকাবিলায় প্রয়োজনে ভারতীয় সেনাবাহিনীর সহযোগিতা চাওয়া হবে বলে জানিয়েছেন ভারতে নিযুক্ত আফগান রাষ্ট্রদূত। এরই মধ্যে আফগানিস্তানের সাবেক প্রেসিডেন্ট হামিদ কারজাই জানিয়েছেন, শিগগিরই তালেবানের সঙ্গে সরকারের শান্তি আলোচনা শুরু হবে।
জানা গেছে, গত কয়েক দিনের ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবারও আফগানিস্তানের বিভিন্ন প্রান্তে তালেবানের সঙ্গে সরকারি বাহিনীর রক্তক্ষয়ী লড়াই অব্যাহত ছিল। দেশটির উত্তরাঞ্চলজুড়ে আধিপত্য বিস্তারের পর দক্ষিণালীয় প্রদেশগুলোতেও সরকারি বাহিনীর বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করেছে তালেবান। সেখানকার বিভিন্ন এলাকা নিজেদের দখলে নিতে প্রতিনিয়তই লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে তালেবান জঙ্গিরা।
এরই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার, কান্দাহারে আফগান নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে তালেবান সদস্যদের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। তালেবানের হাতে আটক নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের উদ্ধারে সেখানে আফগান সেনারা অভিযান চালাতে গেলে দু'পক্ষের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। এ সময় দু’পক্ষের মধ্যে কয়েক ঘণ্টাব্যাপী গোলাগুলি চলে বলে জানায় স্থানীয় সংবাদমাধ্যম।
এক পর্যায়ে তালেবান সদস্যরা তাদের ঘিরে ফেললে আত্মসমর্পণে বাধ্য হন নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা। তবে, এদের মধ্যে কেবল একজনকে উদ্ধার করতে সক্ষম হন আফগান সেনারা। এ সময়, আটটি গাড়িতে থাকা ৩০ থেকে ৪০ জন আফগান সেনার মধ্যে কেবল একটি গাড়িতে থাকা সেনারা তাদের ঘাঁটিতে ফিরে আসতে সক্ষম হন বলেও জানানো হয়।
এদিকে আফগানিস্তান থেকে ৯০ ভাগেরও বেশি মার্কিন সেনা প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে পেন্টাগন। মঙ্গলবার পেন্টাগনের সেন্ট্রাল কমান্ড ‘সেন্টকম’ জানিয়েছে, সেপ্টেম্বরের সময়সীমার আগেই সেনা প্রত্যাহারের কাজ শেষ করতে তারা আফগান নিরাপত্তা বাহিনীর কাছে সাবেক সাতটি মার্কিন ঘাঁটি আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করেছে। সেখান থেকে অধিকাংশ মালামালও সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।
গত শুক্রবার প্রায় দুই দশক পর যুক্তরাষ্ট্র ও ন্যাটোর সেনারা আফগানিস্তানের বাগরাম বিমানঘাঁটি ত্যাগ করেন। আফগানিস্তানের রাজধানী কাবুল থেকে ৫০ কিলোমিটার উত্তরে বাগরাম বিমানঘাঁটি অবস্থিত। গত শতকে স্নায়ুযুদ্ধের সময় এই বিমানঘাঁটি তৈরি করা হয়।
আফগানিস্তানে যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান বিমানঘাঁটি ছিল বাগরাম। আফগানিস্তানে নিয়োজিত মার্কিন ও ন্যাটো বাহিনী এত দিন এই বিমানঘাঁটি ব্যবহার করে আসছিল। আফগান যুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের সর্বোচ্চ সংশ্লিষ্টতার সময় এই বিমানঘাঁটিতে হাজারো সেনার উপস্থিতি ছিল।
প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের নির্দেশ মতো মার্কিন সেনা ও বেসামরিক নাগরিক প্রত্যাহারের অধিকাংশ প্রক্রিয়া গত এপ্রিলে সম্পন্ন করা হয়।
২০০১ সালের ১১ সেপ্টেম্বর। জঙ্গি সংগঠন আল-কায়েদার সঙ্গে জড়িত ১৯ জঙ্গি চারটি উড়োজাহাজ ছিনতাই করে আত্মঘাতী হামলা করেন যুক্তরাষ্ট্রের তিনটি জায়গায়। দুটি উড়োজাহাজ আঘাত হানে নিউইয়র্কের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার বা টুইন টাওয়ারে।
এই হামলার জেরে সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট জর্জ ডব্লিউ বুশ ২০০১ সালে আফগান যুদ্ধ শুরু করেছিলেন। প্রায় দুই দশক ধরে চলা আফগান যুদ্ধের ইতি টানছে যুক্তরাষ্ট্র। আগামী ১১ সেপ্টেম্বরের আগে আফগানিস্তান থেকে যুক্তরাষ্ট্র সব সেনা প্রত্যাহার করবে। এ লক্ষ্যে অর্ধেকের বেশি কাজ সম্পন্ন হয়েছে বলে জানা গেছে।

প্রবাসখবর.কম/বি

প্রবাস খবর
এই বিভাগের আরো খবর