মঙ্গলবার   ২৬ জানুয়ারি ২০২১   মাঘ ১৩ ১৪২৭   ১২ জমাদিউস সানি ১৪৪২

প্রবাস খবর
সর্বশেষ:
আপনি কি আপনার প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা সম্পর্কে লিখতে চান? লেখা [email protected] এ পাঠাতে পারেন।
৮৭

ঋণ পেলেন বিদেশ ফেরত ৬১৬ জন প্রবাসী

প্রকাশিত: ১১ জানুয়ারি ২০২১  

করোনার মধ্যে দেশে ফেরা প্রবাসীদের জন্য সরকার যে ঋণ সহায়তা কর্মসূচি চালু করেছিল, তার আওতায় পাঁচ মাসে ঋণ পেয়েছেন ৬১৬ জন।
জানা যায়, যদিও দেশে ফেরা প্রবাসীর সংখ্যার তুলনায় এ সংখ্যা খুবই নগণ্য, শূন্য দশমিক ১৫ শতাংশ। শর্ত শিথিলসহ নানা উদ্যোগের পরও এ ক্ষেত্রে প্রত্যাশিত সাড়া পাওয়া যাচ্ছে না।
এদিকে দেশে ফিরে আয়ের উৎস হারানো প্রবাসীদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করতে সরকার স্বল্প সুদে পাঁচ লাখ টাকা পর্যন্ত ঋণ দিচ্ছে। এ উদ্যোগ প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের। এ জন্য ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ড থেকে প্রবাসীকল্যাণ ব্যাংককে ২০০ কোটি টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।
ওয়েজ আর্নার্স কল্যাণ বোর্ড সূত্র বলছে, গত বছর ৪ লাখ ৮ হাজার প্রবাসী কর্মী দেশে ফিরেছেন। এর মধ্যে প্রায় ৪৯ হাজার নারী কর্মী। তাঁদের বেশির ভাগ কাজ হারিয়ে ও পুলিশের হাতে আটকের পর বাধ্য হয়ে ফিরে আসেন।
কেউ কেউ এসেছেন কাজের চুক্তির মেয়াদ শেষে। দেশে ফিরে অধিকাংশ প্রবাসী আয়হীন অবস্থায় দুর্দশার মধ্যে রয়েছেন। আবার যাওয়ার সুযোগও সীমিত হয়ে পড়েছে
প্রবাসীকল্যাণ ব্যাংক গত বছরের ১৫ জুলাই এই প্রবাসীদের কাছ থেকে ঋণের আবেদন নেওয়া শুরু করে। ব্যাংকটি প্রবাসীদের ৪ শতাংশ সুদে কৃষি, মৎস্য ও ছোট আকারের বাণিজ্যিক খাতে ঋণ দিচ্ছে। তবে শুরুর দিকে ঋণ ছাড়ে ব্যাপক ধীরগতি ছিল।
এ কারণে গত সেপ্টেম্বরে শর্ত কিছুটা শিথিল করা হয়। শুরুতে গত বছর মার্চের পর দেশে ফেরা প্রবাসীদের ঋণের যোগ্য হিসেবে বিবেচনা করা হতো। পরে শর্ত শিথিল করে ২০২০ সালের ১ জানুয়ারির পর ফেরা সবাইকে ঋণ নেওয়ার সুযোগ দেওয়া হয়।

প্রবাসখবর.কম/বি

প্রবাস খবর
এই বিভাগের আরো খবর