শুক্রবার   ১৮ জুন ২০২১   আষাঢ় ৫ ১৪২৮   ০৮ জ্বিলকদ ১৪৪২

প্রবাস খবর
সর্বশেষ:
আপনি কি আপনার প্রবাস জীবনের অভিজ্ঞতা সম্পর্কে লিখতে চান? লেখা [email protected] এ পাঠাতে পারেন।
৭১৬

আজ শিক্ষাবিদ আবু হেনা মোস্তফা কামালের মৃত্যুবার্ষিকী

প্রকাশিত: ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

আবু হেনা মোস্তফা কামাল – বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, কবি, সাহিত্যিক, গবেষক ও সংগীত রচয়িতা। বাংলাদেশ টেলিভিশনের কুশলী উপস্থাপক হিসেবেও তাঁর ব্যাপক জনপ্রিয়তা ছিল। নিজস্ব ভাষাশৈলীতে রসঘন সাহিত্য রচনা এবং কবিতায় ও সংগীতে উজ্জ্বল উপস্থিতি তাঁকে সাহিত্য ও সংস্কৃতি অঙ্গনে করে তুলেছে অনন্য। আজ তাঁর ত্রিশতম মৃত্যুবার্ষিকী।
১৯৩৬ সালের ১৩ মার্চ জন্ম নেওয়া এই শিক্ষাবিদ ১৯৫২-তে পাবনা জেলা স্কুল থেকে ম্যাট্রিক এবং ১৯৫৪ সালে ঢাকা কলেজ থেকে আইএ পাস করেন। ম্যাট্রিক পরীক্ষায় প্রথম বিভাগে ত্রয়োদশ স্থান এবং আইএ পরীক্ষায় প্রথম বিভাগে সপ্তম স্থান অধিকার করেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৫৮ সালে বাংলায় বিএ অনার্স এবং একই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৫৯ সালে বাংলায় এমএ ডিগ্রি লাভ করেন। স্নাতক (সম্মান) ও স্নাতকোত্তর উভয় পরীক্ষায় প্রথম শ্রেণিতে প্রথম স্থান অধিকার করেন। এ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বেঙ্গলি প্রেস অ্যান্ড লিটারারি রাইটিং-১৮১৮-১৮৩১ শীর্ষক অভিসন্দর্ভ রচনা করে পিএইচ ডি ডিগ্রি অর্জন করেন।
আবু হেনা মোস্তফা কামাল বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমী ও বাংলা একাডেমীর মহাপরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। ছাত্রজীবন থেকেই আবু হেনা ছিলেন সংস্কৃতিপ্রেমী। নিয়মিত লিখতেন কবিতা আর গান। স্বদেশপ্রেম, মানবপ্রেম, হৃদয়ের অন্তরঙ্গ অনুভূতি, গভীর আবেগ সব মিলিয়ে আধুনিক শিল্প চর্চার এক পরিশিলিত রূপের দেখা মেলে তার কবিতা আর গানে।

‘তুমি যে আমার কবিতা’, ‘অনেক বৃষ্টি ঝরে’, ‘নদীর মাঝি বলে’, ‘অপমানে তুমি জ্বলে উঠেছিলে সেদিন বর্ণমালা’,‘এই বাংলার হিজল তমালে’র মত অনন্য সৃষ্টি রয়েছে আবু হেনা মোস্তফা কামালের। প্রবন্ধ, সমালোচনা, গবেষণাধর্মী লেখা সাহিত্যের এই ক্ষেত্রেও ভাষা শৈলি, বক্তব্য উপস্থাপন রীতি, রসবোধ ও অনুভূতির বহিঃপ্রকাশে আবু হেনা স্বাতন্ত্র্য।

"প্রবাসখবর.কম/বি-এস"

 

প্রবাস খবর
এই বিভাগের আরো খবর